রামগতিতে অস্ত্র তৈরির কারখানার সন্ধান

বয়ারচর থেকে পাঁচ আগ্নেয়াস্ত্রসহ দুইজন গ্রেফতার

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার বয়ারচর থেকে বাবলু (৩২) ও আনোয়ার হোসেন (৫৬) নামের দুইজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাাপিড এ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান-র‌্যাব। এসময় তাদের কাছ থেকে ৩টি একনলা বন্দুক এবং ২টি এলজি ও অস্ত্র তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি বাজারে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র তৈরীর কারখানার সন্ধান পায় একটি ওয়ার্কশপে। সেখান থেকেও অস্ত্র তৈরীর বিপুল সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। তবে; কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

রোববার ভোর থেকে সকাল পর্যন্ত র‌্যাব-১১ এর স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জসিম উদ্দীন চৌধুরী পিপিএম এর নেতৃত্বে এ অভিযান চলে। গ্রেফতারকৃত দুইজনই বয়ারচরের বাসিন্দা বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

এদিকে অস্ত্র তৈরীর উদ্ধার ও গ্রেফতারের ঘটনায় রোববার সকাল ১০টার দিকে নোয়াখালী প্রেসক্লাবের শহীদ উদ্দীন এস্কান্দার কচি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তুলে ধরা হয় র‌্যাবের পক্ষ থেকে।  এসময় র‌্যাব-১১ এর স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জসিম উদ্দীন চৌধুরী পিপিএম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অস্ত্র ক্রয়-বিক্রির খবর পেয়ে র‌্যাব-১১ সিপিএসসি নারায়ণগঞ্জ ও সিপিসি-৩ লক্ষ্মীপুর প্রথমে হাতিয়ার বয়ারচরে অভিযান চালায়। এসময় পাঁচটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ বাবুল ও আনোয়ারকে গ্রেফতার করে তারা। পরে তাদের দেওয়া তথ্যমতে লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি বাজারের রায়হান ওয়ার্কশপে অভিযান চালানো হয়। ওয়ার্কশপের একটি কক্ষ তারা অস্ত্র তৈরির কারখানা হিসেবে ব্যবহার করে। ওই কক্ষ থেকে একটি একনলা বন্দুকের গুলিসহ বিপুল পরিমাণে অস্ত্র তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, রামগতি বাজারে রায়হানের ওয়ার্কশপের আড়ালে অস্ত্র তৈরি করা হয়। ওই অস্ত্রগুলো চরের বিভিন্ন সন্ত্রাসী বাহিনীর কাছে বিক্রি করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের ও র হাতিয়া থানায় হস্তান্তর করা হবে।

মন্তব্য লিখুন :