কোম্পানীগঞ্জে বিএনপির ১২ নেতার বিরুদ্ধে মামলা বিএনপি নেতার মামলা

ভাংচুরের পর ফখরুল ইসলাম ফারুকের বাড়ি। ছবি-ডিজিটাল নোয়াখালীর সৌজন্যে।

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি কামাল উদ্দিন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান রিপনসহ ১২ নেতার বিরুদ্ধে ভাংচুর, লুটের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছেন মেট্রো হোম্স এর চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা শিল্পপতি ফখরুল ইসলাম ফারুক মামলা দায়ের করেছেন। 

শনিবার রাতে তার বসুরহাট পৌরসভা হাসপাতাল রোডে তাঁর বাসভবনে হামলা, ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এঘটনায় ব্যবসায়ী ফখরুল ইসলাম ফারুকের বাসভবনের কেয়ারটেকার মোঃ শাহদাত হোসেন বাদী হয়ে তাঁর নির্দেশ মোতাবেক রোববার কোম্পানীগঞ্জ থানায় নিয়মিত মামলা রজু করে। মামলায় ১২জনের নাম উল্লেখসহ ৩০-৪০জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। 

মামলায় অন্যান্য আসামীরা হলেন, বিএনপি নেতা সাবেক কাউন্সিলর নুরনবী সবুজ, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মানছুরুল হক বাবর, উপজেলা স্বেচ্চাসেবক দলের সভাপতি শামসুদ্দিন হায়দার, সরকারী মুজিব কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি খালেদ সাইফুল্লাহ, ছাত্রদল নেতা আবদুল্লাহ সোহান, সালা উদ্দিন সুমন, নাজিম উদ্দিন হৃদয়, জাকের হোসেন সুমন, সাইফুল ইসলাম ও মোঃ অনিক।

এদিকে একইদিন সরকারী মুজিব কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি খালেদ সাইফুল্লাহ’র ওপর হামলা ও কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় মেট্রো হোম্স এর চেয়ারম্যান, বিএনপি নেতা ও শিল্পপতি ফখরুল ইসলাম ফারুককে প্রধান আসামী করে ১৬ জনের নাম উল্লেখসহ কয়েকজনকে অজ্ঞাত আসামী করে থানায় অভিযোগ দিয়েছে ছাত্রদল নেতা খালেদ সাইফুল্লাহ। 

এবিষয়ে উপজেলা বিএনপির সভাপতি কামাল উদ্দিন চৌধুরী মুঠোফোনে জানান, ফখরুল ইসলাম ফারুকের করা মামলায় আমরা সকলে আদালত থেকে মঙ্গলবার জামিনে এসেছি। রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের কারণে ছাত্রদল নেতা খালেদ সাইফুল্লার ওপর হামলার ঘটনায় তার অভিযোগটি পুলিশ রেকর্ড করেনি।  

কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আরিফুর রহমান জানান, মেট্রো হোম্স এর চেয়ারম্যান, বিএনপি নেতা শিল্পপতি ফখরুল ইসলাম ফারুকের বাসভবনে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় মামলা রেকর্ড হয়েছে (মামলা নং-১২)। এখন পর্যন্ত এঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। 


মন্তব্য লিখুন :