আহবায়ক কমিটি ঘোষনাকে কেন্দ্র করে

সেনবাগে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত-১০

নোয়াখালীর সেনবাগে বিএনপির দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় গোলাগুলির ঘটনাও ঘটে। এতে অন্তত ১০জন আহত হয়েছেন। বুধবার বিকালে উপজেলার বিএনপির আহবায়ক কমিটি ঘোষনাকে কেন্দ্র করে সাবেক এমপি জয়নুুল আবদিন ফারুক গ্রুপ ও জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও কাবিলপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বাহার গ্রুপের মধ্যে ছমিরমুন্সির হাট বাজারে এই ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে মোঃ মোজম্মেল হোসেন ও নুর হোসেন নামে দুই জনের নাম জানাগেলেও বাকিদের নাম পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি। 

জানাগেছে, সেনবাগ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটিতে বাহার চেয়ারম্যানকে সদস্য সচিব করে আহবায়ক কমিটি ঘোষণার পূর্ব মৃহুর্তে তার নাম পরিবর্তন করা হয়েছে এমন গুজবে বাহার চেয়ারম্যান গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এই নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক আলোচনা সমালোনা শুরু হয়। যার জেরে বুধবার বিকাল ষাড়ে ৪টার দিকে বাহার চেয়ারম্যান গ্রুপের লোকজন প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করার জন্য ছমির মুন্সিরহাট বীর বিক্রম শহীদ তরিক উল্লাহ স্টেডিয়ামে জড়ো হয়। এসময় জয়নুল আবদনি ফারুক গ্রুপ সমর্থক জেলা পরিষদ সদস্য জহিরুল ইসলাম জহিরের লোজজন তাদের বাধা দেয়। এনিয়ে উভয়ের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া,সংঘর্ষ ,বোমাবাজি ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ চলাকালে মুখাবাঁধা যুবকদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র দেখা যায়। তবে;তাদের পরিচয় জানা যায়নি।

সংঘর্ষ চলাকালে ছমির মুন্সিরহাট বাজার সংলগ্ন বীর বিক্রম শহীদ তরিক উল্লাহ স্টেডিয়াম  ও ছমির মুন্সির হাট বাজারের রণক্ষেত্রে পরিনত হয়। ভয়ে লোকজন দিগি¦দিক ছুটোছুটি করে এবং মুহুর্তের মধ্যে দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।

খবর পেয়ে সেনবাগ থানার ভারপ্রাাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল বাতেন মৃধার নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যকপুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে উভয়কে ধাওয়া করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

মন্তব্য লিখুন :