নিউইয়র্কে কমিউনিটির প্রিয়মুখ আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিনের দাফন সস্পন্ন

নিউইয়র্কে ব্রঙ্কসের বাংলাবাজার জামে মসজিদ ও স্টারলিং-বাংলাবাজার বিজনেস এসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, নিউইয়র্ক সিটি পুলিশ ডিপার্টমেন্টের ৪৩ পুলিশ প্রিসেন্টের কমিউনিটি পার্টনার, কমিউনিটির প্রিয়মুখ, সমাজসেবী আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিনের দাফন সস্পন্ন হয়েছে। নিউইয়র্ক ১১ এপ্রিল শনিবার বিকালে জানাজা শেষে নিউজার্সির টেটোয়ায় বাংলাবাজার মসজিদের নিজস্ব কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। জানাজায় ইমামতি করেন নর্থ ব্রঙ্কস জামে মসজিদ অ্যান্ড ইসলামিক সেন্টারের খতীব মাওলানা মো: মাসহুদ ইকবাল।

বাংলাবাজার জামে মসজিদের সাধারণ সম্পাদক লালন আহমেদ এবং মাওলানা মো: মাসহুদ ইকবাল জানান, কতৃপক্ষের অনুমতিক্রমে জানাজায় তার পরিবারের সদস্যসহ ১৫ জন উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১০ এপ্রিল শুক্রবার ভোর সোয়া ২টায় নিউইর্কের মান্টিফিউর (আইনস্টাইন) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাহী রাজিউন)। মৃত্যুকালে গিয়াস উদ্দিনের বয়স হয়েছিল ৬২ বছর। তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে, এক মেয়ে, ৪ ভাই ২ বোন সহ বহু আত্মীয়-স্জন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার পুরো পরিবারই যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। ব্রঙ্কসের এ অ্যান্ড এ ভেরাইটি ডাবল ডিসকাউন্ট এবং জি অ্যান্ড আর ভেরাইটি ডিসকাউন্ট ইনকের কর্ণধার আলহাজ গিয়াস উদ্দিন ব্রঙ্কসে বসবাস করতেন। তার দেশের বাড়ি সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার জাউয়া বাজার গ্রামে। 

এদিকে, বাংলাবাজার জামে মসজিদ ও স্টারলিং-বাংলাবাজার বিজনেস এসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, কমিউনিটির প্রিয়মুখ আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিনের মৃত্যুতে নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্রের বাঙালী কমিউনিটিতে গভীর শোকের ছায়া নেমে আসে।

জানা যায়, বৃহত্তর সিলেটের সুনামগঞ্জ জেলার ছাতকের কৃতি সন্তান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন দীর্ঘ ৩৮ 

ছাতকের কৃতি সন্তান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন নিজ গ্রাম জাউয়া বাজার সহ নিজ এলকায় মসজিদ-মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা, হত দরিদ্রদের সাহায্য সহযোগিতায় ছিলেন সিদ্ধহস্ত। এর মধ্যে ছাতকের দৌলতপুর লতিফিয়া দাখিল মাদ্রাসার জন্যও প্রায় সাড়ে ৮ লাখ টাকা মূল্যের আধা একর ভূমি দান করেন তিনি। আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দীন গত ফেব্রুয়ারী মাসে পবিত্র মক্কায় উমরাহ পালন ও মদীনায় নবী মোহাম্মদ (সা:) এর রওজা মোবারক জিয়ারত করেন।

মন্তব্য লিখুন :