নিউইয়র্কে নিহত জসিমের জানাজা অনুষ্ঠিত, অশ্রুসজল বিদায়

নিউইয়র্কে নির্মাণকাজ চলাচালে দেয়াল চাপা পড়ে নিহত জসিম উদ্দিনের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বাদ জুমা ব্রুকলিনের বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টারে অনুষ্ঠিত জানাজায় শোকার্ত মুসুল্লীদের ঢল নামে। দীর্ঘ একযুগের প্রবাস জীবনের পরিচিত, সহকর্মী, স্বজন ও কমিউিনিটির নেতৃবৃন্দ শেষবারের মতো অশ্রুসজল বিদায় জানায় জসিমকে। এরআগে ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে বৃহস্পতিবার  মরদেহ হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয় বলে জানান তাঁর স্বজনরা।

জানাজা শেষে মরদেহ ফিউনারেল হোমে রাখা হয়। পরবর্তীতে শুক্রবার রাত ১১টায় এমিরেটস্ এয়ারালাইন্সের বিমানে করে তাঁর মরদেহ বাংলাদেশে পাঠানো হয়। ৪ জানুয়ারি সোমবার গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার ভানুয়াই গ্রামের বাড়িতে নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে জসিমের মরদেহ সমাহিত করা হবে। 

এদিকে জসিমের জানাজাকে ঘিরে ব্রুকলিনের ১০৫ কোর্টলইউ রোডের বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টার মুসুল্লীদের উপচে পড়া ভীড় ছিলো। এছাড়া চার্চ-ম্যাকডোনাল্ড ও আশপাশের এলাকা থেকে জুমার নামাজ আদায় করে মুসুল্লীরা জানাজায় শরিক হয়। মুসলিম সেন্টার পূর্ণ হয়ে এসময় রাস্তাও দাঁড়ায় মুসুল্লীরা। জানাজায় বৃহত্তর নোয়াখালী সোসাইটি ইউএসএ ইনক্ এর সভাপতি নাজমুল হাসান মানিক, সেক্রেটারি জাহিদ মিন্টু, ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মফিজুর রহমান, বাংলাদেশ সোসাইটির সদস্য মঈনুল উদ্দিন মাহবুবসহ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন আঞ্চলিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, নিহত জসিমের ভাই হারুনুর রশিদসহ স্বজনসহ শোকার্ত প্রবাসীরা অংশ নেন।

২০০৮ সালে সোনালী ভবিষ্যৎ গড়তে পাড়ি জমিয়েছিলেন নিউইয়র্কে। দীর্ঘ চড়াইউৎরাই পেরুলেও স্থায়ী অভিবাসনের বিষয়টি নিষ্পত্তি হওয়ার আগেই দেয়ালের নিচে চাপা পড়ে যায় জসিমের কাঙ্খিত স্বপ্ন। ১৪ বছরের সন্তান, স্ত্রী ও পিতা-মাতার সাথে তাঁর আর কখনো স্বাক্ষাৎ হবেনা। অথচ; সবাইকে নিয়ে সুখে থাকতে রাতদিন হাঁড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করেছিলেন গত একযুগ ধরে।

প্রসঙ্গত : গত ২৮ ডিসেম্বর সোমবার দুপুরে নিউইয়র্ক সময় দুপুর ২টার দিকে ব্রুকলিনের সানসেট পার্কে ফিফথ্ এভিনিউ এবং ফর্টিসেকেন্ড স্ট্রিটের একটি বাড়িতে নির্মাণ কাজ করার সময় সীমানা দেয়াল চাপা পড়ে ঘটনাস্থলে নিহত হন জসিম উদ্দিন। একই সময়ে গুরুতর আহত হন আশরাফুল ইসলাম হাসান (৩৫) নামের অপর বাংলাদেশী। আহত হাসান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। জসিমের মৃত্যুতে বৃহত্তর নোয়াখালী সোসাইটি ইউএসএ ইনক্,  সোনাইমুড়ী সোসাইটি, গোপালপুর ক্লাব যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন সংগঠন শোক প্রকাশ করে।


মন্তব্য লিখুন :