নিউইয়র্ক পুলিশের সার্জেন্ট পদে ড. রাজুব ভৌমিক

‘‘আজ আমার জীবনের স্মরণীয় একটি দিন....”

ছোট্ট একটি শিরোনামের সাথে আরো দুটি লাইনের একটি স্ট্যাটাস নিউইয়র্ক সময় দুপুর ১২টার দিকে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দেন বাংলাদেশী আমেরিকান ড. রাজুব ভৌমিক। প্রতিটি মানুষ সাফল্যে খবর দ্রুত প্রিয়জনদের সাথে ভাগাভাগি করে, তিনিও তাই করলেন। নিউইয়র্ক পুলিশের (এনওয়াইপিডি) অফিসার থেকে সার্জেন্ট হিসাবে নিজের পদোন্নতি প্রাপ্তির খবরটি শেয়ার করে সবার দোয়া চাইলেন কাউন্টার টেররিজম ইউনিটে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করা এই চৌকষ অফিসার। 

একাধারে অধ্যাপক, গীতিকার, কবি, লেখক-সাংবাদিক, মডেল এবং অভিনেতার মতো বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী নোয়াখালীর এই কৃতি সন্তান ড. রাজুব ভৌমিককে ‘বিস্ময় বালক’ বলে মজা করেন প্রথম আলো উত্তর আমেরিকার আবাসিক সম্পাদক ইব্রাহিম চৌধুরী। দ্রুততম সময়ে প্রিয় কর্মস্থল প্রথম আলোর পক্ষ থেকে সংক্ষিপ্ত আয়োজনে অভিনন্দনও জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার সকালে কুইন্সের পুলিশ একাডেমিতে পুলিশ কমিশনার ডেরমট শে এর উপস্থিতিতে এই পদোন্নতি দেয়া হয়। মহামারী করোনার কারণে পদোন্নতির শপথ অনুষ্ঠানটি সংক্ষিপ্ত ও সীমাবদ্ধ আকারে অনুষ্ঠিত হয়। এরপরই পদোন্নতি সনদসহ তিনি ফেসবুকে ছবি আফলোড করেন। এরপরই শুরু হয় অভিনন্দন আর শুভকামনা জানানো। রাত পৌনে ১২টা নাগাদ সেই পোস্টে ৫’শ জন মন্তব্য জানিয়েছেন শুভেচ্ছা, অভিনন্দন ও আশীর্বাদ জানিয়ে।

সার্জেন্ট পদে শপথ নেয়ার পর রাজুব ভৌমিক বলেন, “এই শপথ অনুষ্ঠানের সময় পরিবারের সবাই এবং বন্ধুদেরকে ভীষণ মিস করেছি। যদিও সবাই পুলিশ একাডেমির বাইরে আমার জন্য অপেক্ষা করছিল তারপরও তারা সঙ্গে থাকলে বেশ আনন্দ হত। একজন বাংলাদেশি হিসেবে এই পদে শপথ নিতে পেরে আমি গর্বিত।” 

রাজুব ভৌমিক পুলিশ অফিসার হিসেবে নিউইয়র্ক সিটি পুলিশ ডিপার্টমেন্ট (এন ওয়াই পি ডি) তে কাউন্টার টেরোরিজম অফিসার হিসেবে আট বছর ধরে কর্মরত ছিলেন। 

ড. রাজুব ভৌমিকের জন্ম নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার বাটইয়া ইউনিয়নের শ্রীনদ্দি গ্রামে। ২০০৫ সালে তিনি পরিবারের সাথে আমেরিকায় পাড়ি জমান। বর্তমানে তিনি নিউইয়র্কে বসবাস করছেন।

গত ছয় বছর ধরে তিনি জন জে কলেজ, সিটি ইউনিভার্সিটি নিউইয়র্কে তিনি অপরাধবিদ্যা, আইন ও বিচার বিভাগে অধ্যাপনা করছেন। এছাড়া তিনি হসটস কলেজ, সিটি ইউনিভার্সিটি নিউইয়র্কে মনস্তাত্তিক বিভাগে অধ্যাপনা করেন। 

ড. রাজুব ভৌমিকের বিভিন্ন ভাষায় প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা পঁচিশটিরও বেশী। সিটি ইউনিভার্সিটি অব নিউইয়র্কে তার প্রকাশিত তিনটি পাঠ্যপুস্তক নিয়মিত পড়ানো হয়।


তথ্যঋণ- সময় নিউজ।


মন্তব্য লিখুন :