লক্ষ্মীপুর জেলায় ফের লকডাউন

করোনা ভাইরাস ঝুঁকি মোকাবেলায় এই সংক্রান্ত কমিটির সিদ্ধান্তের আলোকে অবরুদ্ধ লক্ষ্মীপুর জেলাকে ফের লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। সোমবার বিকাল সোয়া ৪ টায় লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক (ডিসি) অঞ্চন চন্দ্র পাল এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এছাড়া জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গনবিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে মঙ্গলবার সকাল ৬ টা থেকে পুরনায় লকডাউন কার্যকর হবে। 

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রামক ঝুঁকি মোকাবেলায় ‘করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটি, লক্ষ্মীপুর ’এর সভার সিদ্ধান্ত ও সংশিষ্ট সবার সঙ্গে আলোচনাক্রমে সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ আইন অনুযায়ী লক্ষ্মীপুর জেলাকে অবরুদ্ধ পুনরায় লকডাউন ঘোষণা করা হলো।’ এর আগে ১২ এপ্রিল লকডাইন ঘোষনা করা হলে চলতি মাসে ১২ মে থেকে দোকান পাট খোলা হলে ক্রেতা বিক্রেতারা স্বাস্থ্য বিধি না মেনে কেনা কাটা করায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুনরায় লকডাইন জোরদার করতে বাধ হয়। 

পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত জেলার অভ্যন্তরে আন্ততঃ উপজেলা যাতায়াতের ক্ষেত্রেও একই নিষেধাজ্ঞা বলবৎ হবে বলা হয়েছে। এছাড়া সব ধরনের গণপরিবহন, জনসমাগম আগের মতো বন্ধ থাকবে। তবে জরুরি পরিসেবা যেমন চিকিৎসা, খাদ্যদ্রব্য,শিশু খাদ্য পরিবহনে নিয়োজিত পরিবহন, কৃষিপন্য উৎপাদন,মৎস্য সরবরাহ ও সংগ্রহ ইত্যাদি এর আওতা বহির্ভুত থাকবে। 

জেলা প্রশাসক অঞ্চন চন্দ্র পাল জানান,সর্বসাধারণের স্বার্থে পুরনায় লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৬ টা থেকে পুরনায় লকডাউন কার্যকর হবে। এ আইন অমান্য করা হয়ে ভ্রাম্যমান আদালতে বিচার করা হবে। 

জানা গেছে,এর মধ্যে এক ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। এছাড়া সদর-২৮,রামগঞ্জ-২২, কমলনগর- ০৮, রামগতি- ১০, রায়পুর- ৩১ জনসহ গত কয়েকদিন ধরে লক্ষ্মীপুরে ৯৯ জন করোনায় আক্রান্ত হন। এর মধ্যে ও দিনের বেলায় গায়ের সাথে গা লাগিয়ে ঈদের কেনা কাটা জমে উঠে দোকান গুলোতে। পুরুষের চাইতে নারীদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। এ জন্য বাজার ব্যাবসায়ী সহ সচেতন নাগরীকের দাবীতে ফের লকডাইন দিতে বাধ্য হয় প্রশাসন। 

মন্তব্য লিখুন :