VIP কাহন

আমেরিকাতে কাদের VIP বলে, জানতে গুগলে সার্চ করলাম, বেশিরভাগ সূত্রই বলছে শিক্ষক ও বিজ্ঞানী। সূত্রগুলো অবশ্য সমর্থিত নয়, তবে বিশ্বাসযোগ্য। এখানে এ দুই পেশার মানুষকে খুব সন্মান দেয়া হয়। আপনার মনে হতে পারে, ইনারা যে VIP সেটা বোধহয় ইনারা নিজেরাই জানেন না, কারণ এই যাবত কোন শিক্ষককে তো VIP সুবিধা নিতে দেখা যায়নি। আসলে মানুষের কাছে ইনারা VIP ঠিকই, তবে ইনারা মনে VIP'র সম্মান-সুবিধা পাবার আশা আখাংকা পোষণ করেন না।

রাষ্টের নীতিনির্ধারক পর্যায়ে অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তিরাই মূলত VIP সুযোগ সুবিধা নিয়ে থাকেন। তাঁদের নিরাপত্তার প্রয়োজনে সেটা নিতে হয়।

"The Siasat Daily" নামে একটা ভারতীয় পত্রিকা VIP বিষয়ক দীর্ঘ একটা আর্টিকেল ছেপেছে, ভারতে VIP দূষণে জনজীবন কি ভয়ানক দুর্বিষহ সেটা সবিস্তারে বর্ণনা করা হয়েছে আর্টিকেলটিতে, বলা যায় VIP পঁচানো আর্টিকেল। ভারত নাকি VIP'র সংখ্যায় বিশ্ব সেরা আর সাধারণ মানুষের কাছে সেসব VIP নাকি একটা বিরাট অভিশাপ। VIP তালিকায় ছিচকে সন্ত্রাসী থেকে শুরু করে অনেক বড় চিহ্নিত অপরাধীও আছে, তারা কিভাবে VIP হলো সেটা বলা নাই। VIP সংখ্যায় উন্নত দেশগুলোর তুলনায় ভারতের অবস্থান কোথায় সেটার একটা তুলনামূলক চিত্র দেয়া আছে, তবে কোন গবেষণায় তথ্যগুলো উঠে এসেছে সেটার উল্লেখ নাই। তাদের দেয়া তথ্যমতে মর্কিন যুক্তরাষ্ট্রে VIP হলো মোট ২৫২ জন, জাপানে ১২৫ জন। জার্মানি, ব্রিটেন ও ফ্রান্সে যথাক্রমে ১৪২,৮৪ ও ১০৯ জন। ভারতের প্রতিবেশী চীনে সর্বমোট VIP ৪৩৫ জন। ভারতে কতজন হতে পারে? চীনের সমান, নাকি দ্বিগুন? উন্নত দেশগুলোর ছোট ছোট সংখ্যা জানার পর ভারতের সংখ্যাটা শুনলে চোখ কপালে উঠে যাবে। ৫৭৯০৯২ জন! বলাই বাহুল্য আমরা তাদের যোগ্য প্রতিবেশী। একটা VIP শুমারি হলে জানতে পারতাম আমাদের অবস্থানটা কোথায়। বাঘ শুমারির মতো কঠিন কাজ হতে পারলে VIP শুমারি কেন নয়!

এইবার আসি আমার নিজের VIP (VP) হবার গল্পে। ২০১৫ তে হেজ-ফান্ডে চাকুরী পেলাম "সল্যুশন আর্কিটেক্ট" হিসাবে। এপয়েন্টমেন্ট লেটারে পদবী লেখা VP, মানে ভাইস প্রেসিডেন্ট। মাথা নষ্ট! অন্য কারো এপয়েন্টমেন্ট লেটার ভুল করে আমার নামে পাঠিয়ে দিলো নাতো ! সাথে সাথে ইমেইল করলাম। উত্তর এলো, "আমরা ভুল করিনি, তোমার পদবি আসলেই VP, আমাদের বেতন কাঠামোয় "সল্যুশন আর্কিটেক্ট " বলে কিছু নাই। মনের গভীরে অদ্ভুত এক জমিদারী ভাবের উদয় হলো।পরক্ষনেই নিজে নিজে হাসলাম। আমার মতো অজ্ঞ লোক হবে ভিপি! কেমনে কি! যেটা নিজেরই বিশ্বাস হচ্ছেনা সেটা অন্যরা কিভাবে বিশ্বাস করবে! যাই হোক, জমিদারী পদবী নিয়ে কাজে যোগদান করলাম। বসার চেয়ার টেবিল দেখে তো হতাশ। আগের চাকুরীতে দুইজনের জন্য একটা রুম বরাদ্দ ছিল, এখানে দেখি গণহারে সবার সাথে বসতে হবে। বসার ব্যাবস্থা যাই হোক পদবী তো মাশাল্লাহ খানদানি, তাই মেনে নিলাম। পরে আবিষ্কার করলাম, কূয়ার ব্যাঙ পুকুরে এসে পড়েছি, এখানে সবাই VIP । কিচেনে ফ্রি স্ন্যাকস, ড্রিঙ্কস আরো কত কিছু।
সে যাই হোক, প্রথম এসাইনমেন্ট এলো, CEO (নবাব) এর টেলিফোনের কিছু পরিবর্তন করতে হবে।নবাবদের মতো কিছুটা খেয়ালী ইচ্ছা। মোজার্টের মিউজিক উনার খুব পছন্দ, সেটা তিনি তাঁর ফোনের হোল্ড মিউজিক হিসাবে চান। কাজটা করে দিলাম কিন্তু কিছুতেই তাঁর পছন্দ হচ্ছিলো না।আসলে তিনি যেটা চাচ্ছিলেন সেটার ব্যাখ্যা কয়েকজনের ভায়া হয়ে আমার কাছে আসছিলো, কাজেই পৌঁছাতে পৌঁছাতে যাত্রাপথে তথ্যের বিরাট ঘাটতি হচ্ছিলো, অনেকটা সরকারের দেয়া বরাদ্দ জনগণের কাছে পৌঁছাতে পৌঁছাতে যেমন করে ৯০ ভাগ ঘাটতি হয়ে যায় তেমন। শেষে সিদ্বান্ত হলো, আমি তাঁর রুমে বসে কাজ করবো, তিনি সেটা পর্যবেক্ষণ করবেন। হেজ ফান্ডের CEO বলে কথা, আমার কপালে চিকন ঘাম, হাঁটুতে থরহরি কম্পন। পশুরাজ সিংহের সামনে অসহায় খরগোশকে যেমন করে বনের সবাই ঠেলে ঠুলে পাঠিয়েছিলো, আমার টিমের সবাই একইভাবে আমাকে নবাবের দরবারে পাঠালো।
গিয়ে দেখি বিশাল একটা রুমে একজন ছোটোখাটো গড়নের আইরিশ ভদ্রলোক বসে আছেন। অভিব্যাক্তিতে VIP'র লেশমাত্র নাই। আমাকে দেখে উঠে এগিয়ে এলেন। নিজের চেয়ার ছেড়ে আমাকে সেখানে বসতে বললেন, তাঁর অবিশ্বাস্য প্রস্তাব সবিনয়ে প্রত্যাখ্যান করলাম, বললাম "তুমি VIP, তোমার চেয়ারে আমি বসতে পারিনা"। আমাকে আরেকধাপ অবাক করে দিয়ে বললেন, আমি মোটেও VIP নয়, বরং এই মুহূর্তে তুমিই সবচেয়ে বড় VIP, তোমাকে আমার খুব দরকার।তাঁর অমায়িক আচরণে চাপমুক্ত বোধ করলাম, যার ফলে কাজটা সুন্দর ভাবে শেষ হলো।
বছর খানেক কাজ করে উপলব্ধি করলাম, হেজ-ফান্ড যে উপায়ে টাকা উপার্জন করে সেখানে বিরাট একটা ঝামেলা আছে। বিশেষ শিল্প সম্মত উপায়ে এরা অন্যের শ্রমের-ঘামের টাকা পকেটে নিয়ে নেয় আর সেটা দিয়ে VIP গিরি করে। জমিদারদের চিরাচরিত নিয়মে এরাও ভয়ানক শোষক।স্বেচ্ছায় VP পদবীর অবসান ঘটালাম, এবং আরেকটা অখ্যাত কোম্পানিতে খেটে খাওয়া কর্মী পদবীতে ফিরে গেলাম। বোধোদয় হলো, VIP হবার চেয়ে খেটে খাওয়া কর্মী হতে পারা অনেক বেশি শান্তির ও সম্মানের। ভাববেন না আমি VIP আর VP গুলিয়ে ফেলেছি। বলতে চেয়েছি VP হলো একটা VIP পদবী, সে পদবীর ভার আমাকে কিছুদিন বহন করতে হয়েছিল।

জীবন চলার পথে কিছু VIP'র সানিধ্যে আসার দুর্লভ সৌভাগ্য (!) হয়েছিল। আমার পর্যবেক্ষণে তাদের কিছু কমন আচরণ ধরা পড়েছে, সেগুলো নিন্মে দেয়া হলো।

১. আপনার কাছে তাঁদের প্রয়োজন পড়লে তাঁরা আপনার কাছে আসবেন
না, বরং আপনাকে ডেকে পাঠাবেন।
২. সব সময় আপনার সামনে মুলা ঝুলিয়ে কাজটা আদায় করে নেবেন,
কাজ শেষে সব ভুলে যাবেন।
৩. আপনাকে কথা দিয়ে সেই কথা তাঁরা ভুলে যাবেন। ফোন দিলে জানবেন
তাঁরা অন্য কাজে ব্যাস্ত।
৪. তাঁরা ভাবেন সবাই তাঁদের সেবায় নিয়োজিত, তাঁরা সেবা করার সুযোগ
দিয়ে অন্যের জীবন ধন্য করছেন।
৫. তাঁদের খুশি রাখতে আপনাকে একটার পর একটা সেবা করেই যেতে হবে,
আপনি সেবা বন্ধ করলেই তাঁরা সম্পর্ক বাতিল করে দেবে।
৭. তাঁদের চরম উপকারী বন্ধুটিকেও তুচ্ছ করে তার পেছনে অপমানকর কথা
বলেন।
৮. যে কোন মূল্যে তাঁর টা চাইই চাই, সেটার যোগান দিতে অন্যদের কি হাল
হয় সেটা তাঁদের বিবেচ্য বিষয় নয়।
৯. এরা সব কিছু বিনামূল্যে পেয়ে যেতে চায়। কারো কাজের পারিশ্রমিক দিতে
চায় না।
১০. দেশটা এদের বাপের সম্পত্তি, এরা যেটা বলে সেটাই নিয়ম।


লেখক- তথ্য প্রযুক্তিবিদ, নিউইয়র্ক।




লেখাটি লেখকের ফেসবুক ওয়াল থেকে নেওয় হয়েছে। যা হুবহু তুলে ধরা হয়েছে।
কার্টুনটি “ভিআইপি কালচার” নামের একটি ইন্টারনেট পেজ থেকে নেওয়া






মন্তব্য লিখুন :