পাপের সওদা ছাড়ি মেটাই সিজদার তিয়াস

আমি গুনাহগার, নালায়েক, গুমরাহির আঁধারে নিমজ্জিত।                                                                    

নামাজি জিন্দেগানির পাবন্দি না করে কেবল দিলের ভেতরে গুমরাহির বীজ গেছি বুনে। দিলে আমার জিকিরের জজবা জারি নাই রবের। আমার এলেমের কমতি আমারে পাপের রসাতলে সরস করে তোলে । গুমরাহি আমাকে গ্রাস করেছে, যেন পাপের নিমজ্জনেই আমার দুনিয়াবি ফায়দা। রবের আরাধনা আর সেজদা রুকুর মারেফত আমার দিলে পয়দা হয়না । মারেফতের হাকিকত আমার জিকিরের তরতীবে আসেনা । আমি অন্ধ গুমরাহিতে লিপ্ত, তাসবিহ তাহলিল আর জিকির আসগারে আমার দিলের রোখ ঠিক হয়না । লোভ, কাম, ক্রোধ, নিন্দা দমনের ধারাপাত আসেনা। রবের আরাধনায় মজিবার ধ্যান আসেনা,তিমিরের আঁধার বিদুরিত হয় না। প্রভুকে পাইবার বাসনা গ্রাস করে ইবলিশ। আমার গুমরাহির চোখে দুনিয়া পরিয়ে দেয় জাহেলি যুগের ঠুলি। বাতেনি নূর আমার মনের চোখ  উন্মোচিত করেনা । তুর পাহাড়ের আলোকরশ্মি আমার দিলে জ্যোতির জাগরন তোলে না। দিলের দুয়ারে কে যেন মেরে দিয়েছে শয়তানি সিন্দুকের তালা। কি এক বেভুলে ভুলে ভুলে ফেতনার দুনিয়ায় আমি খুইয়ে যাই সংক্ষিপ্ত আয়ুর জিন্দেগি। পরীক্ষার জীবনকে আমি ভাবি চূড়ান্ত আয়েশের আরামি খায়েশ মোচনের মোর্তবা। হায় কি গুনাহর নদীতে আমি কাটি আয়েশি সাঁতার।

আহ। সিদরাতুল মুনতাহার রৌশন যদি দিলে একবার দ্যোতনা তুলতো, তবে সিজদায় নিজেরে শিশু ভাবতাম । আমার জিন্দেগানিতে কেবলি দুনিয়ার জিকির। আমার চারপাশে কেবলি পাপের ফিকির।

ওহে দেখা-অদেখা জিন্দেগির মালিক। ওহে অদৃশ্য তাওহীদ। কি এক গুমরাহির আঁধারে ডুবে গেছি আমি। রহমত, মাগফেরাত আর নাজাতের শীতল পরশে ছুঁয়ে দাও আমার পাপের শরীর। ওহে রব,আমার অনন্ত সত্ত্বার মালিক। বিনাশ হোক আমার অন্তর আত্মার ক্লেদ আর হিংসার পাথর। ওহে রহমান। পবিত্র হইবার তিয়াসে আমি জঁপিতে চাই তাসবির সকল পাঠ । আমার দিলে পয়দা হউক আরশে আজিমের আলোকচ্ছটা । নূরের ঝিলিক। জাহেরি বাতেনি নূরের তাহলিল আমার দিলে বসুক। কেরাতে, কিয়ামে, দুরূদে বৈঠকে... আমার মন ব্যাকুল হইয়া উঠুক। ফেতনা ফ্যাসাদ দূর হোক আখলাকের স্বচ্ছ নূর তাজাল্লিতে । পর্দার রূপ জাগুরুক হোক বেপর্দা রমনির আশ্রয় থেকে । আমার আত্মা জমজমের জলে ধুয়ে হোক কুদরতি পর্দার আড়াল ।

কালেমায়, নামাজে আমি মজিবারে চাই । মৌনতায় বুঁদ হয়ে আমি চাই রবের আরাধনা । ওহে নূরের রৌশন। ওহে তাওহিদের তাসবিহ। আখলাকে আমার পয়দা হোক তাবলীগের তরতিব । হেরার গুহায় ইলমে আসা আসমানের আহবান আমার বোধের ভেতরে গাঁথিতে চাই । ওহির অমিয় আওয়াজ  আসুক সুবহে সাদিকের বর্ণ রেখায়,ভোরের বাতাসি আতরে। ক্বলবে কালেমার আশেক জারি  চাই- আমার দিলের দরিয়ায় । আজানে, আহবানে আমি ছুটিবারে চাই আরশের মালিকের সিজদায়।আমি অনন্ত অসীমের মৌনতায় স্থির হতে হতে এক অপার অস্থির তিয়াস মিটাতে পাই।আমার পাপ তাপ , আস্তাগফিরে আমি মহানের সেজদায় লুটাতে চাই। তাকবিরে তাহরিমায় আমি তাহার বড়ত্ব ঘোষণা করিতে চাই । ফরজে, ওয়াজিবে, নফলে আমি তো রবের নৈকট্য পানে প্রেমে ও পিয়াসে মুদিতে চাই । মিনারে মিনারে বেজে উঠুক রবের সুর মূর্ছনা,আমি তার ঝান্ডা উড়াতে চাই। আমার জায়নামাজ আলোকিত হোক বেহেশতি জেওরে । জাহান্নামের জ্বলন্ত আগুনের আহবান আমি নেভাতে চাই মোহাম্মদের কাওসারের শীতল তস্তুরিতে। আমার প্রার্থনার আরতি হোক অহুদ,খন্দক আর বদরের শহীদি কাফেলার খুন ঝরানো অমিয় বানি। যে খুনে লেগে ছিলো সত্যের সীমানা রাঙানো আলো। সাফা মারওয়ার বেদনা বুকে নিয়ে আমিও চাই ত্যাগের মহিমা। আমি কর্মী হতে চাই মদিনার বুলবুলের, বিশ্ব মানবতার মুক্তি মানব মুহাম্মদের। কুরানে,হাদিসে,ইজমা কিয়াসে সঁপিবারে চাই আমার আমিত্ব । শুনিবারে চাই হেরার ওহির আহবান ।

সাজাতে চাই মনের মেহফিল। তোমরা পাপের দুনিয়া সাজাও। মরণের ম্রিয়মান মোচ্ছব আসার আগেই কোরআনের জিয়ন কাঠিতে আমি জাগাতে চাই দিলের আলোকবর্তিকা।আমি তাঁহার পূজা অর্চনায় সঁপিলাম মন ও মনন। আমি রবের সিজদায় লুটিলাম ...


-সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, এনটিভি।


মন্তব্য লিখুন :