মন্ট্রিয়ালে কমিউিনিটির পাশে থাকায় “লোকাল হিরো” সম্মাননা পেলেন ফরহাদ

কানাডার মন্ট্রিয়ালে করোনা ভাইরাসের সংক্রমনে পর্যদুস্থ বাংলাদেশী কমিউনিটির পাশে থেকে রমজানে অসহায় পরিবারগুলোর জন্য প্রয়োজনীয় খাবার সরবরাহ করা, প্রতিবেশীদের মনোবল অটুট রাখতে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা সর্বপরি সমাজিক কর্মকান্ডে অবদানের জন্যলোকাল হিরোসম্মাননা পেয়েছেন হায়াত খান ফরহাদ। তিনি এবং তাঁর নেতৃত্বাধীন স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দ আক্রান্ত পরিবারগুলোর পরিচর্চা খাবার সরবরাহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

প্রবাসীদের পাশে থেকে মানবিক প্রয়াস চালানোর জন্য বৃহত্তর নোয়াখালী এসোসিয়েশন মন্ট্রিয়ালের জন্য অনুদান প্রদান করেছেন আরসি ম্যাকগি (Arcy McGee) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য (Member of Parliament) ডেভিড বর্ণবাউম (David Birnbaum MNA) এই সংসদ সদস্য তাঁর ফেসবুক পেজে পোস্টে উল্লেখ করেন- হায়াত খান ফরহাদের নেতৃত্বাধীন স্বেচ্ছাসেবীরা এই সংকটকালীন সময়ে বাংলাদেশী পরিবারগুলোকে একত্রিত করা, খাবার সরবরাহসহ প্রয়োজনীয় সহযোগীতার মাধ্যমে একটি মিশন বাস্তবায়ন করেছে।

একইভাবে মাউন্ট রয়্যালের সংসদ সদস্য (Member of Parliament) মি. এন্থ্যনি হাউজফাদার (Mr Anthony Housefather) একপত্রে উল্লেখে করেন- তাঁর নিজ নির্বাচনী এলাকায় করোনাকালীন সময়ে রমজানে বাংলাদেশী কমিউিনিটিতে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে একত্রিত করা, বিশেষ খাবার সরবরাহ করাসহ বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে হায়াত খাঁন ফরহাদের নেতৃত্বাধীন স্বেচ্ছাসেবীরা মানুষের পাশে থেকেছেন। তিনি হায়াত খাঁন ফরহাদকে অভিনন্দন জানিয়ে লিখেন- রমজানে সংকটের সময়ে অনেক ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সহযোগীতা প্রয়োজন ছিলো। পরিবারগুলো সেই সেবা পেয়ে কৃতজ্ঞ।

হায়াত খান ফরহাদ গত ১৭ বছর ধরে মন্ট্রিয়ালে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছেন। তিনি বৃহত্তর নোয়াখালী এসোসিয়েশন, মন্ট্রিয়ালের ডি-কর্ট্রি এলাকায় বায়তুল মোকারম মসজিদসহ স্থানীয় বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত থেকে কমিউনিটিতে সামাজিক কর্মকান্ড করে আসছেন নোয়াখালীর প্রাচীনতম বিদ্যাপীঠ চৌমুহনী সরকারি এস কলেজের একসময়ে জনপ্রিয় এই ছাত্রনেতা। 

মন্তব্য লিখুন :