শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের প্রত্যাশা মার্কিন দূত রবার্ট মিলারের

রবার্ট মিলার

বাংলাদেশে আসন্ন একাদশ জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গতকাল সোমবার গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলার এ আশার কথা শোনান বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম। গত মাসে দায়িত্ব নিয়ে ঢাকায় আসার পর ১১ ডিসেম্বর প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেও একই কথা বলেছিলেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত। সাক্ষাতে আগামি সাধারণ নির্বাচন ছাড়াও রোহিঙ্গা সমস্যা ও পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানান ইহসানুল করিম। প্রধানমন্ত্রীকে মিলার জানান, আগামি সাধারণ নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ৩২ জন পর্যবেক্ষক বাংলাদেশে আসবেন। রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার বলেন, বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিকদেরকে তাদের নিজ বাসভূমে ফেরত পাঠাতে মিয়ানমারের রাখাইনে উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে হবে। রোহিঙ্গা সঙ্কটে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে বলে আশ্বস্ত করেন তিনি। বাংলাদেশের জ¦ালানি খাতে যুক্তরাষ্ট্র সহযোগিতা করতে আগ্রহী বলে জানান রবার্ট মিলার। তিনি বলেন, তার দেশ বাংলাদেশের শিক্ষা খাতকে আরো উৎসাহিত করতে চায়। বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যেকার সম্পর্কের বিষয়ে রবার্ট মিলার বলেন, দুই দেশের বিদ্যমান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক এখন অত্যন্ত শক্তিশালী। সাক্ষাতে প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের ইতিহাস ও সংগ্রাম সম্পর্কে নতুন রাষ্ট্রদূতকে অবহিত করে বলেন, গত ৪৭ বছরে বাংলাদেশে একমাত্র তার সরকারের পূর্ণ মেয়াদ শেষে ২০০১ সালে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর হয়। আগামী সাধারণ নির্বাচনের প্রাক্কালে সহিংস ঘটনার বিষয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সম্প্রতি তার দল আওয়ামী লীগের দুই কর্মীকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। দলের নেতাকর্মীদেরকে এসব বিষয়ে ধৈর্য ধরতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে রাষ্ট্রদূতকে জানান শেখ হাসিনা। ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসতে পারলে আগামি অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৮ শতাংশ অর্জনে তার সরকার সক্ষম হবে বলেও মন্তব্য করেন বাংলাদেশের সরকারপ্রধান।

মন্তব্য লিখুন :