কোম্পানীগঞ্জে পাঁচ প্রবাসী পৌরভবনে কোয়ারেন্টাইনে

কোভিড-১৯ সংক্রামণ মোকাবেলায় শনিবার সকালে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. সেলিমের হাতে নগদ এক লাখ টাকা তুলে মেয়র আব্দুল কাদের মীর্জা।

করোনা ভাইরাস কোভিট-১৯ এর সংক্রমন সন্দেহ ও সাম্প্রতি বিদেশ থেকে দেশে ফিরে হোমকোয়ারেন্টাইন না মেনে চলায় নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার উদ্যোগে পাঁচ জন প্রবাসীকে পৌরভবনের হল রুমে কোরেন্টাইনে রাখা হয়েছে। 

এদিকে শনিবার দুপুর ২টা পর্যন্ত জেলায় সর্বমোট ২৭৪জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. মোমিনুর রহমান।

জানা গেছে, সাম্প্রতি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার করালিয়ার বাসিন্দা ওবায়দুল হক আরব আমিরাত থেকে, একই এলাকার জমির উদ্দিন সৌদি আরব থেকে, পশ্চিম মোহম্মদপুর এলাকার আকরাম হোসেন আরব আমিরাত থেকে, একই এলাকার সাইফুল ইসলাম ওমান থেকে ও রমাদী এলাকার জাবেদ হোসেন আরব আমিরাত থেকে দেশে ফিরে আসনে। দেশে আসার পর তাদের হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকতে বললেও তারা তা মানছিলেন না। তাই শনিবার সকালে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জার উদ্যোগে পৌরভবনের হল রুমে পাঁচটি আলাদা বেড দিয়ে তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফয়সাল আহমদে জানান, দেশে আসার পর থেকে এ পাঁচজন প্রবাসীকে বিভিন্ন বার সর্তক করে হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হলেও তারা তা মানছিলেন না। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গা ঘুরাঘুরি করতেন। তাই বসুরহাট পৌর ভবনের দ্বিতীয় তলায় হল রুমের মধ্যে তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। কোয়ারেন্টাইনে থাকাকালিন তাদের খাওয়াসহ সকল ধরনের দায়িত্ব বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা নিয়েছেন। বিদেশ থেকে আসার তারিখ হিসেব করে তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে।

তিনি আরও জানান, সকালে কোভিড-১৯ সংক্রামণ মোকাবেলায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. সেলিমের হাতে নগদ এক লাখ টাকা তুলে দিয়েছেন মেয়র। 


মন্তব্য লিখুন :