হাতিয়ায় জাহাজ ডুবি, নাবিকসহ ১৫জনকে জীবিত উদ্ধার

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার মেঘনা ও বঙ্গোপাসগরের মোহনায় এমভি আক্তার বানু-১ জাহাজ ডুবির ঘটনায় মাস্টারসহ ১৫জনকে জীবিত উদ্ধার করেছে জেলেরা। রোববার দুপুরে তাদের উদ্ধার করে প্রথমে হাতিয়ার বুড়িরচর সূর্যমুখী ঘাটে আনা হয়। পরে সেখান থেকে কোস্টগার্ড তাদেরকে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মালবাহী জাহাজটি ডুবে যাওয়ার পর জাহাজের মাস্টারসহ ক্রু’রা নদীতে ভাসতে থাকে। এ সময় হাতিয়ার বুড়িরচর ইউনিয়নের বাসিন্ধা আব্দুল গনী মাঝীর মাছধরা ট্রলারের জেলেরা ডুবে যাওয়া জাহাজের মাস্টার জিয়াউল হকসহ সবাইকে উদ্ধার করে ঘাটে নিয়ে আসে। সেখান থেকে কোস্টগার্ড তাদেরকে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন এবং হাতিয়ায় তাদেরকে দুপুরের খাওয়া খাওয়ানো হয়। 

জানতে চাইলে হাতিয়া কোষ্টগার্ডের স্টেশন কমান্ডার বিশ্বজিত বড়–য়া জানান, আপাতত তাদেরকে হাতিয়ায় রাখা হয়েছে মালিক পক্ষের লোকজন আসলে তাদের জিম্মায় দেওয়া হবে। 

উল্লেখ, গত শুক্রবার চট্টগ্রাম থেকে ১৮ মে. টন গম নিয়ে এমভি আক্তার বানু রওয়ানা হন নারায়ণগঞ্জ। পথে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কবলে পড়ে মালবাহী জাহাজটি ১৫জনকে নিয়ে শনিবার সকালের দিকে ভাষানচর এলাকার মেঘনা-বঙ্গোপসাগরের মোহনায় ডুবে যায়।


মন্তব্য লিখুন :