সেনবাগে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী দিদার চট্টগ্রামে গ্রেফতার

নোয়াখালীর সেনবাগে উপজেলার দুই সন্তানের জননী (৩৮)কে গণধর্ষণের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার প্রধান আসামী দিদারকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেফতার করেছে সেনবাগ থানা পুলিশ। সোমবার রাতে চট্টগ্রামের বায়জীদ বোস্তামি থানা পুলিশের সহযোগীতায়  তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সেনবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো: ইকবাল হোসেন। এনিয়ে ওই ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ ৬জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গত শুক্রবার রাতে  ধর্ষণের শিকার নারী ১১ জনকে অভিযুক্ত করে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করলে  পুলিশ  ওই রাতে তিন ধর্ষক ও এক ইউপি সদস্য সালিশদারসহ৫ জনকে গ্রেফতার করে কারাগারে প্রেরণ করে। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে ওয়ার্ড মেম্বার সালিশদার আবু বক্কর ছিদ্দিক,মাষ্টার আব্দুল হক,ওবায়দুল হক,মাসুদ ও ইয়াছিন। ধর্ষণের শিকার ওই নারী বর্তমানে নোয়াখালী জেনারেলের হাসপাতালে  চিকিৎসাধীন রয়েছে। চিকিৎসাধীন নারী পরিবারকে মামলা তুলে নেওয়ার হুমকি দেওয়া হচেছ বলেও অভিযোগ রয়েছে।

প্রসঙ্গত: গত ৫ সেপ্টেম্বর রাতে মামলার প্রধান আসামী দিদারসহ তার অপর ৪/৫ জন সহযোগী  কৌশলে ওই নারীকে তাদের বাড়ির পাশ্ববতী একটি  ঝোপে নিয়ে ধর্ষন করে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে পরদিন ৬ সেপ্টেম্বর ওই এলাকায় একটি সালিশ বৈঠক বসিয়ে ওই নারীকে  উল্টা দুশ্চরিত্রা আখ্যা দিয়ে বেত্রাঘাত( ডোররা) মারা হয়। এবং ধর্ষকের মাথা ন্যাড়া ও জরিমানা করা হয়। শালিসদারা এতেই ক্ষান্ত হননি। তারা ওই নারী যাতে আইনে আশ্রয় না নিতে পারে সে জন্য তাকে তার পিতার বাড়ি কোম্পানীগঞ্জে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এরপর সে সেখান থেকে কৌশলে সেনবাগ থানায় এসে ১০ সেপ্টেম্বর অভিযোগ দিলে পুলিশ সালিশদারসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করে। 


মন্তব্য লিখুন :