নোয়াখালীতে সাংসদ, জেলা প্রশাসক, মুক্তিযোদ্ধাসহ ভ্যাকসিন দিলেন ৪৬৯ জন

সারা দেশের ন্যায় নোয়াখালী জেলার ৯টি উপজেলায় করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হয়েছে। প্রথম দিনে দুইজন সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসক, মুক্তিযোদ্ধা, উপজেলা চেয়ারম্যান, মেয়র ও চিকিৎসকসহ মোট ৪শ ৬৯জন টিকা নিয়েছেন।

রবিবার সকাল ১০টায় ২৫০শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের নির্ধারিত বুথে টিকা গ্রহণ করেন নোয়াখালী-৪ আসনের সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান, সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার, মুক্তিযুদ্ধে সি জোন কমান্ডার মোশারফ হোসেন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন জেহান, উন্নয়ন সংগঠক আব্দুল আউয়ালসহ বিশিষ্টজনরা টিকা গ্রহণ করে সাধারণ মানুষকে টিকা নিতে উদ্বুদ্ধ করেন । বেলায় ১১টায় চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা নেন নোয়াখালী-১ আসনের সাংসদ এইচ এম ইব্রাহিম। সকালে সোনাইমুড়ীতে টিকা নিয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া। 

সুবর্ণচরে টিকা গ্রহণ করেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ খায়রুল আ ন ম সেলিম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইভনুল হাসান ইভেন। কোম্পানীগঞ্জে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মীর্জা, কবিরহাটে পৌর মেয়র জহিরুল হক রায়হানসহ জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ টিকা গ্রহণের মাধ্যমে জনসাধারণকে উদ্বুদ্ধ করেন।

গুজবে কান না দিয়ে সবাইকে টিকা দিয়ে নিরাপদ থাকার আহবান জানিয়ে এমপি একরামুল করিম চৌধুরী বলেন, আমি নিজে টিকা দিয়েছি। তাই কোন প্রকার ভুল কথা শুনে কেউ টিকা দেওয়া থেকে বিরত থাকবেন না।

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ২শ ২০ জন এবং পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে ৫০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। টিকা দেওয়ার জন্য জেলার ১০টি কেন্দ্রে মোট ৩৩টি বুথ খোলা হয়েছে। প্রতিটি টিকা কেন্দ্রে দুই জন করে স্বাস্থকর্মী ও চারজন করে স্বেচ্চাসেবক নিয়োজিত করা হয়েছে। টিকা দেওয়ার জন্য এ পর্যন্ত নিবন্ধন হয়েছে প্রায় তিন হাজার।

সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার বলেন, টিকা প্রদানের প্রথম দিনে নোয়াখালীতে ৩৮৯জন পুরুষ ও ৮০জন নারীসহ মোট ৪শ ৬৯জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। পর্যাক্রমে এ টিকাদান চলবে।


মন্তব্য লিখুন :